কৃষকের ধান কেটে দিলো দেবিদ্বার উপজেলা ছাত্রলীগ

কৃষকের ধান কেটে দিলো দেবিদ্বার উপজেলা ছাত্রলীগ
  • 2
    Shares

গোটা বিশ্বের মতো বাংলাদেশও করোনাভাইরাসের থাবা থেকে রক্ষা পায়নি। চারপাশে ভয়-ভীতি আর অস্থিরতা; এমন সময়ে অনন্য একটি দৃষ্টান্ত তৈরি করেছে কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলা ছাত্রলীগ। সংগঠনটির কর্মীরা অভাবি মানুষের তালিকা তৈরি করে করে তাদের পাশে গিয়ে দাঁড়াচ্ছে, পৌঁছে দিচ্ছে ত্রাণ। ‘হ্যালো ছাত্রলীগ’ এর মাধ্যমে তারা অসহায়দের পাশে দাঁড়িয়েছে।

শুধু তাই নয়, করোনার এই সময়টায় যখন কৃষকের মাঠে সোনালী ধান, তখন সেই ধান কাটার জন্য শ্রমিকের তীব্র সংকট দেখা দিয়েছে। ফলে কৃষকের ধান মাঠেই নষ্ট হওয়ার মতো অবস্থা। এই পরিস্থিতিতে উপজেলার বিভিন্ন জায়গায় মানুষের ক্ষেতের ধান কেটে বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দিচ্ছে ছাত্রলীগের কর্মীরা।

গত বুধবার দেবিদ্বারের পৌর এলাকার ৫ নম্বর ওয়ার্ডে গোমতী নদী সংলগ্ন জমিতে দরিদ্র কৃষকদের ধান কেটে মাড়াই করে দেয়ার মধ্য দিয়ে এই কার্যক্রমের সূচনা হয়। এতে অংশগ্রহণ করেন নূরুদ্দীন, মুকিব ওমানি, তানবীর আহমেদ, মঞ্জুরুল ইসলাম রানা, সাইদুল ইসলাম, রাজীব আহমেদ, ইউসুফ, শাহাদাত হোসেন এবং সুজনসহ অনেকে।

উপজেলা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক ইকবাল হোসেন জানিয়েছেন, ‘করোনার এই সময়টায় মানুষের সহযোগিতা খুব প্রয়োজন। এজন্যে আমরা সামাজিক দূরত্ব মেনে এবং আমাদের সংসদ সদস্য রাজী মোহাম্মদ ফখরুলের প্রত্যক্ষ নির্দেশনা ও সহযোগিতায় মানুষের পাশে এসে দাঁড়িয়েছি’।

ছাত্রলীগের নেতারা জানিয়েছেন, মহামারির এই সময়টায় এলাকার এমপি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে চলেছেন। তিনি নিয়মিত সবার খোঁজ-খবর রাখছেন এবং মানুষের পাশে দাঁড়াচ্ছেন। ‘হ্যালো ছাত্রলীগ’ জরুরি খাদ্য সেবার সার্ভিস চালু করা হয়েছে। ‘হ্যালো ছাত্রলীগ’ এ কল করার সাথে সাথে তার নাম ঠিকানা নোট করা হয়। আমরা চেষ্টা করি খাদ্য সামগ্রী উপহার নেয়া সকলের নাম গোপন রাখতে।

এদিকে কুমিল্লার দেবিদ্বারে দরিদ্র মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন নিউইয়র্ক প্রবাসী বিশিষ্ট মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডা. ফেরদৌস খন্দকার। তার প্রতিষ্ঠিত দেবিদ্বার ফয়জুননেসা ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে এখন পর্যন্ত ১৬টি ইউনিয়নে প্রায় ১ হাজার দরিদ্র মানুষকে খাদ্য সহায়তা দেয়া হয়েছে। আরও সহায়তা দেয়া হবে। ছাত্রলীগের এসব উদ্যোমী তরুণেরাই এই কার্যক্রমে সর্বাত্মক সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে। নিউইয়র্ক থেকে এই কার্যক্রমের তদারকি করছেন ডা. ফেরদৌস।

এছাড়া উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক আমিনুল ইসলাম সুমনের নিজস্ব অর্থায়ণের দরিদ্র মানুষদের সহায়তা দেয়া হয়েছে। ছাত্রলীগের এসব কর্মকাণ্ড সর্বমহলে প্রশংসা পাচ্ছে।

‘হ্যালো ছাত্রলীগ’ জরুরি খাদ্য সরবরাহের হট লাইন। এখানে কল করে যে কেউ পেতে পারেন এ খাদ্যসামগ্রী উপহার।

এমআরএম/এমএস