কোয়ারেন্টাইনের ভয় দেখিয়ে চাঁদা দাবি, পুলিশ কর্মকর্তা ক্লোজড

কোয়ারেন্টাইনের ভয় দেখিয়ে চাঁদা দাবি, পুলিশ কর্মকর্তা ক্লোজড
  • 3
    Shares

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া মডেল থানা পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) মানিক মিয়ার বিরুদ্ধে এক ব্যবসায়ীকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখার ভয় দেখিয়ে চাঁদা দাবির অভিযোগ পাওয়া গেছে।

অভিযুক্ত এসআই ডাক্তারি ছুটিতে থাকাকালীন নিজ থানা ছেড়ে পাশের তাড়াশ থানার তালম শিবপাড়া গিয়ে চাঁদা দাবি করেন। এ ঘটনায় উল্লাপাড়া মডেল থানার ওসির কাছে অভিযোগ দেন ভুক্তভোগীর স্ত্রী মুর্শিদা খাতুন।

পরবর্তীতে ওসির মাধ্যমে বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও অবগত হন। এরপর দায়িত্বে অবহেলার দায়ে এসআই মানিককে ক্লোজড করে সিরাজগঞ্জ পুলিশ লাইনসে সংযুক্ত করা হয়।

অভিযোগকারী মুর্শিদা খাতুন তাড়াশ উপজেলার তালম শিবপাড়া গ্রামের আবুজল প্রামাণিকের স্ত্রী। চলমান করোনায় আবুজল প্রামাণিক ঢাকা থেকে গ্রামের বাড়ি এসে আটকা পড়েন। জীবন-জীবিকার তাগিদে গত এক মাস থেকে আবুজল স্থানীয়ভাবে মাস্কের ব্যবসা শুরু করেছেন।

ঢাকা থেকে আগত আবুজলকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখার ভয় দেখিয়ে গত ২৩ এপ্রিল তার কাছে চাঁদা দাবি করা হয়। ডাক্তারি ছুটিতে থাকা উল্লাপাড়া থানার এসআই মানিক মিয়া সশরীরে গিয়ে চাঁদা দাবি করেন। স্ত্রী মুর্শিদা খাতুন এ নিয়ে ওসির কাছে অভিযোগ দেন।

উল্লাপাড়া মডেল থানা পুলিশের ওসি দীপক কুমার বলেন, পুলিশ সুপার কার্যালয় থেকে এক আদেশে বুধবার রাতে এসআই মানিককে ক্লোজড করে পুলিশ লাইনসে সংযুক্ত করা হয়েছে। আদেশপত্রে চাঁদা দাবির অভিযোগ না থাকলেও মানিকের দায়িত্বে অবহেলার বিষয় উল্লেখ রয়েছে। ডাক্তারি ছুটিতে থেকে তাড়াশে গিয়ে যে ঘটনাটি তিনি ঘটিয়েছেন তা আসলেই ন্যক্কারজনক।

এ বিষয়ে জানতে এসআই মানিক মিয়ার মুঠোফোনে শুক্রবার কল করা হলে সাংবাদিক পরিচয় শুনেই ফোন কেটে দেন। এর আগেও দায়িত্ব অবহেলা ও কর্মক্ষেত্রে ফাঁকি দেয়ার অপরাধে মানিক মিয়ার বিরুদ্ধে উল্লাপাড়া থানার সিনিয়র সহকর্মীরা দুটি জিডি করেছিলেন বলে থানা সূত্র জানায়।

সিরাজগঞ্জ পুলিশ সুপার কার্যালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা আবু ইউসুফ বলেন, এসআই মানিককে ক্লোজড করা হয়েছে। তার ঘটনাটি আসলেই বিব্রতকর। বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেয়া হবে।