জিপি’র ইন্টারনেট সংযোগ কমলেও ডেটার আয় ঠিকই বেড়েছে

জিপি’র ইন্টারনেট সংযোগ কমলেও ডেটার আয় ঠিকই বেড়েছে
  • 5
    Shares

প্রথমবারের মতো কোনো এক প্রান্তিকের (জানুয়ারি-মার্চ) প্রতিবেদনে গ্রামীণফোনের ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা কমেছে বলে তথ্য বেরিয়েছে। কার্যকর ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা খানিকটা কমলেও ইন্টারনেট বা ডিজিটাল সেবা থেকে তাদের আয় কিন্তু ঠিক বেড়েছেই।

সম্প্রতি প্রকাশিত গ্রামীণফোনের প্রথম প্রান্তিকের প্রতিবেদন বলছে, বছরের প্রথম তিন মাসে তাদের ইন্টারনেট গ্রাহক দুই লাখ কমলেও আয় বেড়েছে ৫০ কোটি টাকা। বছরের প্রথম প্রান্তিকে তারা ডেটা থেকে মোট আয় করেছে ঠিক সাড়ে আটশ কোটি টাকা। গত বছরের শেষ প্রান্তিকেও এটি ছিল কাটায় কাটায় আটশ কোটি।

মার্চের শেষে দেশের সবচেয়ে বেশি গ্রাহকের অপারেটরটিতে চার কোটি চার লাখ ইন্টারনেট সংযোগ আছে। অথচ বছর শুরু করার সময়ে তাদের ইন্টারনেট গ্রাহক সংখ্যা চার কোটি ছয় লাখ।

গত বছরের মার্চের শেষে অবশ্য তাদের কার্যকর ইন্টারনেট সংযোগ ছিল তিন কোটি ৮২ লাখ। আর তখন ডেটা থেকে আয় হয়েছিল ৬৯০ কোটি টাকা। সুতরাং দেখা যাচ্ছে, ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা মোটামুটি একই রকম থাকলেও এই খাত থেকে তাদের আয় কিন্তু বাড়ছে লাফিয়ে লাফিয়ে।

অপারেটরটির একটি সূত্র জানিয়েছে, ইন্টারনেট ব্যবহাকরীর সংখ্যা আগের মতো থাকলেও মূলত এই সময়ে নতুন গ্রাহক ধরার চেয়ে বরং আগের থ্রিজি বা টুজি ব্যবহার করা গ্রাহকদেরকে তারা অনেক বেশি ফোরজিতে নিয়ে আসতে পেরেছেন। সে কারণে তাদের সামগ্রিক ডেটার ব্যবহার যেমন বেড়েছে তেমনি এই খাত থেকে তাদের আয়ও বেড়েছে।

গ্রামীণফোন বলছে, তাদের এমন অবস্থানের কারণ তাদের শক্তিশালী নেটওয়ার্ক। অপারেটরটিতে এখন এক কোটি ৪২ লাখ ফোরজি গ্রাহক আছে। সে কারণে সামগ্রিক ডেটার ব্যবহার বেড়েছে।

গ্রামীণফোনের প্রতিটি কার্যকর ইন্টারনেট সংযোগে এখন মাসে ২,২২৫ এমবি করে ডেটার ব্যবহার হচ্ছে। যা গত বছরের একই সময়ে ছিল মাত্র ১,৪১৮ এমবি। তাছাড়া তাদের ফোরজি নেটওয়ার্ক দেশের তিন-চতুর্থাংশ জনগণকে কাভার করেছে। আর মোট মোবাইল নেটওয়ার্ক দিয়ে দেশের ৯৬ শতাংশ এলাকা যেটাতে আসলে বাস করে ৯৯ দশমিক ৬০ শতাংশ মানুষ।