ঢাকার সবজি বিক্রেতার করোনাভাইরাস পজিটিভ

ঢাকার সবজি বিক্রেতার করোনাভাইরাস পজিটিভ
  • 1
    Share

জয়পুরহাটের কালাই উপজেলার ৩৯ বছরের সবজি ব্যবসায়ী ও আক্কেলপুর উপজেলার গাজীপুরফেরত ৩৫ বছরের গার্মেন্টস কর্মীর শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে।

রোববার রাতে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজের ল্যাবে জয়পুরহাটের ৫৯ জনের নমুনা পরীক্ষায় ৫৭ জনের নমুনা নেগেটিভ হলেও দুইজনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। পাশাপাশি রাজশাহী মেডিকেল কলেজের ল্যাবে ১২ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১২ জনের নেগেটিভ ও একটি রিপোর্ট আসেনি বলে নিশ্চিত করেন সিভিল সার্জন সেলিম মিঞা।

কালাই উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা আবু তাহের তানভীর হোসেন বলেন, আক্রান্ত ব্যক্তির কোনো উপসর্গ না থাকলেও যেহেতু ঢাকায় সবজি বিক্রি করতেন এজন্য নমুনা পরীক্ষা করা হয়। পরে তার করোনা পজিটিভ ধরা পড়ে।

আক্কেলপুর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা জাকিউল ইসলাম বলেন, নতুন করে আক্রান্ত ব্যক্তি সাতদিন আগে গাজীপুর থেকে আক্কেলপুরের বিহারপুর গ্রামে আসেন। তারপর থেকে তিনি হোম কোয়েরেন্টাইনে। আক্রান্ত ব্যক্তি আশপাশের কয়েকটি বাড়ির মানুষের সঙ্গে মিশেছেন। মসজিদে নামাজ পড়েছেন। এজন্য ওই পরিবারের সদস্যদের কোয়ারেন্টাইনে থাকতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। করোনা শনাক্তের পর তাকে গোপীনাথপুর ইনস্টিটিউট হেলথ টেকনোলজির আইসোলেশনে আনা হয়েছে।

জয়পুরহাটের সিভিল সার্জন সেলিম মিঞা বলেন, রোববার রাতে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজের ল্যাবে ও রাজশাহী মেডিকেল কলেজের ল্যাবে ৭২টি নমুনা পরীক্ষার রিপোর্ট এসেছে। এর মধ্যে দুইজনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। তাদের দুইজনকে আক্কেলপুর উপজেলার গোপীনাথপুর ইনস্টিটিউট হেলথ টেকনোলজির আইসোলেশনে রাখা হয়েছে ।

এর আগে কালাই উপজেলার নারায়ণগঞ্জফেরত জিন্দারপুর গ্রামে প্রথম দুইজন ও গাজীপুরফেরত এক গার্মেন্টস কর্মী, পাঁচবিবি উপজেলার ছোট মানিকগ্রাম ও পূর্বকড়িয়ায় দুইজন, আক্কেলপুর উপজেলার তিলকপুর বিষ্ণপুর গ্রামে করোনা রোগী শনাক্ত হয়। এ নিয়ে জেলায় মোট আটজন করোনায় আক্রান্ত হলেন। আগের আক্রান্ত ছয়জনকেও আইসোলেশনে রাখা হয়েছে।

রাশেদুজ্জামান/এএম/জেআইএম