ধান কাটা শ্রমিক সেজে ৪১ জনের বাড়ি যাওয়ার চেষ্টা, আটকে দিল পুলিশ

ধান কাটা শ্রমিক সেজে ৪১ জনের বাড়ি যাওয়ার চেষ্টা, আটকে দিল পুলিশ

ঢাকা থেকে বাসে করে ৪১ যাত্রী ধান কাটার শ্রমিক সেজে এলাকায় ঢুকার চেষ্টা করছিলেন। রোববার (২৬ এপ্রিল) ভোররাতে তাদের আটকে দিয়েছেন নেত্রকোনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (পদোন্নতি প্রাপ্ত পুলিশ সুপার) এসএম আশরাফুল আলম।

জানা গেছে, নেত্রকোনাবাসীকে সুরক্ষিত রাখতে রাত জেগে রাজপথ চষে বেড়াচ্ছেন এই পুলিশ কর্মকর্তা। পদবি অনুযায়ী গুরুত্বপূর্ণ বিশেষ কারণ ছাড়া রাতভর যদিও সড়কে থাকার কথা না তার। তবুও তিনি করোনা প্রতিরোধ করে জেলাবাসীকে সুস্থ রাখতে রাত জেগে নজরদারি করে যাচ্ছেন জেলায় বহিরাগতদের ওপর। ভোররাতে তিনি ঢাকা থেকে আসা যাত্রীবাহী একটি বাস আটক করেন।

netrokona

ঢাকা থেকে ৪১ যাত্রী নিয়ে আসা বাসটিকে জেলা শহরের প্রবেশ মুখে পাড়লা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় আটকে দেয়া হয়। বাস যাত্রীদের গন্তব্যস্থল ছিল জেলার মোহনগঞ্জ উপজেলাসহ বিভিন্ন এলাকায়। তারা নিজেদের ধান কাটার শ্রমিক বলে দাবি করেন। কিন্তু তাদের কাউকে নেত্রকোনায় ঢুকতে দেয়া হয়নি। ঢাকার পথেই তাদের ফেরত পাঠানো হয়েছে।

নেত্রকোনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (পদোন্নতি প্রাপ্ত পুলিশ সুপার) এসএম আশরাফুল আলম বলেন, ইমোশন দেখিয়ে তো জেলার লাখ লাখ মানুষকে ঝুঁকিতে ফেলা সম্ভব না। সেক্ষেত্রে যাত্রীবাহী বাসটিকে শহরে ঢুকতে না দিয়ে ঢাকায় যাওয়ার নির্দেশ দিয়ে পাঠানো হয়েছে। করোনা প্রতিরোধে সামাজিক দূরত্ব ও লকডাউন তথা ঘরে অবরুদ্ধ থাকার কোনো বিকল্প নেই। প্রত্যেককে সরকারি নির্দেশনা মেনে করোনা প্রতিরোধে ভূমিকা রাখার পরামর্শ দেন পুলিশের ঊর্ধ্বতন এই কর্মকর্তা।

কামাল হোসাইন/আরএআর/পিআর