বাবা সত্যজিতের গুপ্তধন পেলেন সন্দীপ

বাবা সত্যজিতের গুপ্তধন পেলেন সন্দীপ
  • 1
    Share

চলচ্চিত্র পরিচালক হিসেবে সত্যজিৎ রায় যেমন খ্যাতিমান তেমনই তার জনপ্রিয়তা লেখক হিসেবেও। তার সৃষ্ট ফেলুদা অসম্ভব জনপ্রিয় একটি চরিত্র। ফেলুদা রহস্য উন্মোচন করে একের পর এক। কখনো কখনো গুপ্তধন খোঁজার কাজেও তার জুড়ি নেই। ফেলুদা সিরিজের অনেকগুলো গল্প থেকেই চলচ্চিত্র নির্মাণ করেছেন তার ছেলে সন্দীপ রায়।

এবার স্বয়ং ফেলুদার ভূমিকায় যেন সন্দীপ! না, সিনেমাতে নয়। বাস্তবেই। লকডাউনের মধ্যে বাবা সত্যজিত রায়ের ‌‌‘গুপ্তধন’ খুঁজে পেয়েছেন সন্দীপ রায়। এতদিন খোঁজ পাওয়া যায়নি এই মূল্যবান জিনিসগুলোর।

সন্দীপ রায় খুঁজে পেয়েছেন সত্যজিৎ রায়ের অনেকগুলো চিঠি ও টেলিগ্রাম। এছাড়া পথের পাঁচালি শুটিংয়ের সময়ের বেশ কিছু স্টিল ছবির নেগেটিভ পেয়েছেন তিনি। এগুলি প্রিন্ট হয়নি বলেই ধারণা করছেন সন্দীপ। চিঠি প্রেরকদের তালিকায় রয়েছেন, ফ্রাঙ্ক কাপরা, আর্থার সি ক্লার্ক, আকিরা কুরোসায়া ও রিচার্ড অ্যাটেনবরো।

এছাড়া এর মধ্যে রয়েছে ১০০টি ছবি, যেগুলি তিনি নিজেই তুলেছিলেন। ১ হাজার নেগেটিভ, যেগুলোর বেশিরভাগই অস্কারজয়ী পরিচালকের প্রথমদিকের সিনেমাগুলোর স্টিল।

১৯৫৯ পর্যন্ত দক্ষিণ কলকাতার ৩১, লেক এভিনিউয়ে থাকত সত্যজিৎ রায়ের ছেলে। এরপর ৩, লেক টেম্পল রোডের বাড়িতে যান। বর্তমানে থাকেন ১/১ বিশপ লেফ্রয় রোডে। বাড়ি বদল করলেও বাবার কাগজপত্র ফেলে রেখেছেন যত্নে। এসবের ভেতর থেকেও বেরিয়ে এলো গুপ্তধন।

সন্দীপ রায় বলেন, ‘এগুলো মাঝে মাঝে পরিষ্কার করি। তবে এখানে যে এমন গুরুত্বপূর্ণ জিনিস রয়েছে তা টের পাইনি। এমন অবসর পেয়েই এটা সম্ভব হলো।’

এমএবি/এমএসএইচ