মাস্ক পরেন নাই কেন জিজ্ঞেস করায় চেয়ারম্যানের বাড়িতে হামলা

মাস্ক পরেন নাই কেন জিজ্ঞেস করায় চেয়ারম্যানের বাড়িতে হামলা
  • 5
    Shares

মুখে মাস্ক পড়াকে কেন্দ্র করে শরীয়তপুরের ডামুড্যা উপজেলার সিড্যা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যানসহ তার পরিবারের চারজনকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ উঠেছে তাদের পাশের গ্রামের বাসিন্দা গিয়াস উদ্দিন ঢালী ও তার ভাইদের বিরুদ্ধে।

গতকাল সোমবার (২৭ এপ্রিল) রাত সাড়ে ৮টার দিকে ওই ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের সিড্যা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় এখনও মামলা হয়নি।

আহতরা হলেন, সিড্যা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আলাউদ্দিন আমিন (৬৯), তার স্ত্রী মমতাজ বেগম (৬০), ছেলে আজিজুর রহমান রাব্বি আমিন (৩২) ও ভাতিজা চৈতন আমিন (১৮)। তারা ডামুড্যা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি আছেন।

আহত ইউপি চেয়ারম্যান আলাউদ্দিন আমিন ও স্থানীয় সূত্র জানায়, সোমবার (২৭ এপ্রিল) সকাল সাড়ে ৭টার দিকে ভেদরগঞ্জ উপজেলার মহিষার ইউনিয়নের কাইচকুড়ি গ্রামের গিয়াস উদ্দিন ঢালী ডামুড্যা উপজেলার সিড্যা আমিন বাজারে কলা বিক্রি করতে আসেন। তখন ইউপি চেয়ারম্যান আলাউদ্দিন আমিনের ছেলে আজিজুর রহমান রাব্বি আমিন গিয়াস উদ্দিন ঢালীকে বলেন আপনার মাস্ক কোথায়? আপনি মাস্ক পরেন নাই কেন? এ নিয়ে দুজনের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়। বেশ কিছু সময় চলে এ বাকবিতণ্ডা। এক পর্যায়ে দুজনের মধ্যে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। পরে বাজার ব্যবসায়ীরা বিষয়টি মিমাংসা করে দেয়।

কিন্তু রাত সাড়ে ৮টার দিকে গিয়াস উদ্দিন ঢালী (৬০) ক্ষিপ্ত হয়ে তার ভাই আনিছুদ্দিন ঢালী (৭০), বিল্লাল ঢালী (৫৫), বাসার ঢালীসহ (৫২) ৫০/৬০ জন লোক দেশীয় অস্ত্র নিয়ে ইউপি চেয়ারম্যান আলাউদ্দিন আমিনের বাড়িতে হামলা চালায়। হামলায় ইউপি চেয়ারম্যান, তার স্ত্রী, ছেলে ও ভাতিজা আহত হন। স্থানীয়রা তাদের ডামুড্যা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন ।

আহত আজিজুর রহমান রাব্বি আমিন বলেন, প্রতিদিন আমি সিড্যা আমিন বাজার ও এলাকায় করোনা প্রতিরোধে সামাজিক দূরুত্ব বজায় রাখতে মাইকিং ও মাস্ক পরতে বলি। কিন্তু সোমবার সকালে পাশের গ্রামের গিয়াস উদ্দিন ঢালী আমিন বাজারে কলা বিক্রি করতে আসলে মাস্ক না পরায় তাকে জিজ্ঞেস করি আপনার মাস্ক কোথায়? আপনি মাস্ক পরেন নাই কেন? বলার সঙ্গে সঙ্গে আমাকে বকা দেন গিয়াস উদ্দিন। আবার রাতে ৫০/৬০ জন লোক নিয়ে আমাদের বাড়িতে হামলা চালায়। আমাদের চারজনকে আহত করে। আমাদের ঘর কোপায় ও লুট করে। আমরা চিকিৎসা নিচ্ছি তাই মামলা করতে থানায় যেতে দেরি হচ্ছে। আজ (মঙ্গলবার) মামলা করবো। আমি এ হামলার বিচার চাই।

এ দিকে গিয়াস উদ্দিন ঢালীর বাড়িতে গিয়ে তাকে পাওয়া যায়নি এবং মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলেও তার খোঁজ মিলেনি। ঘটনার পর থেকে পরিবার নিয়ে বাড়ি থেকে পালিয়েছে বলে জানিয়েছে এলাকাবাসী।

ডামুড্যা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মেহেদী হাসান বলেন, সিড্যা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আলাউদ্দিন আমিন ও তার পরিবারের লোকজনের ওপর হামলা হয়েছে। বিষয়টি জেনে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। তবে এখনও কেউ থানায় অভিযোগ করতে আসেনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

মো. ছগির হোসেন/এমএএস/এমএস