রাজাপুরে ১০ টাকা দরের চাল আত্মসাতের প্রতিবাদে ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ

রাজাপুরে ১০ টাকা দরের চাল আত্মসাতের প্রতিবাদে ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ
  • 4
    Shares

ঝালকাঠি | রহিম রেজা ।। ঝালকাঠির রাজাপুরের শুক্তাগড় ইউনিয়ন পরিষদের ২ নং ওয়ার্ডের মেম্বর ইউনিয়ন আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মনিরুজ্জামানের বিরুদ্ধে ১০ টাকা দরের চাল আত্মসাতের প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেছে সুবিধা বি তরা।

বৃহস্পতিবার বেলা ১১ টার দিকে কেওতা বাজার এলাকায় এ কর্মসূচি পালন করেছেন। পরে সুবিধা বি তরা ইউএনওর কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। ঘণ্টাব্যাপি এ কর্মসূচিতে সুবিধা বি তরা অভিযোগ করে জানান, স্থানীয় কেওতা গ্রামের ইউপি সদস্য মনিরুজ্জামান ২০১৬ সালে ওই এলাকার সুবিধা বি ত ১৩৭ জনের নামে হতদরিদ্রদের জন্য খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির আওতায় নামের তালিকা প্রনয়ন করে, তার মধ্যে নিজের এবং স্ত্রীসহ আত্মীয়স্বজনের নাম অন্তর্ভূক্ত করেছে।

রাজাপুরে ১০ টাকা দরের চাল আত্মসাতের প্রতিবাদে ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ
রাজাপুরে ১০ টাকা দরের চাল আত্মসাতের প্রতিবাদে ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ

এছাড়া ১৩৭ জনের নাম থাকলেও হাতে ঘোনা কয়েক ব্যক্তিকে চাল দিলেও বাকিদের নানা ত্রুটির অযুহাতে কার্ড জমা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে চাল আত্মসাত করে আসছিলো। এমনি ১০ ব্যক্তি জানেনই না তাদের নামে কার্ড ইস্যু করা হয়েছে। এছাড়া একই ব্যক্তির নাম ২ বার এবং মৃত ব্যক্তির নামেও চাল উত্তোলন করে আত্মসাত করে আসছিলো। অভিযোগে জানা গেছে, হুমায়ন কবির (কার্ড নং ২৫৩), ফরিদ (কার্ড নং ১৬১), গোফরান (কার্ড নং ২৪২), মন্নান (কার্ড নং ১৬৮), রোজিনা (কার্ড নং ২১৯), জোবেদা (কার্ড নং ২১২), শুক্কুর (কার্ড নং ২২৬), হারুন (কার্ড নং ২৫২), মাসুম (কার্ড নং ২৫৯) ও ফিরোজ আলম (কার্ড নং ২৩৪) এদের নামে কার্ড ইস্যু করে দীর্ঘদিন সুবিধা বি তদের না জানিয়ে তা আত্মসাত করে মেম্বর মনিরুজ্জামান।

এছাড়া মৃত ৩ ব্যক্তি মতলেব (কার্ড নং ২৪৯), হাবিব (কার্ড নং ১৫১) ও নরুল ইসলাম (কার্ড নং ১৫৪) এবং হান্নান নামের একই ব্যক্তির নামে ২টি কার্ড (কার্ড নং ২৫৩ ও ২৬০) ইস্যু করে তাদের নামের চাল দীর্ঘদিন আত্মসাত করে আসছে ইউপি সদস্য মনিরুজ্জামান। ইউপি সদস্য মনিরুজ্জামান অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, চালের মান খারাপ এমন অভিযোগ তুলে অনেকেই তার বাড়িতে কার্ড ফেরৎ দিয়ে গেছেন। যা এখন তাদের ফিরিয়ে দেয়া হচ্ছে। তবে নিজের ও স্ত্রীর নামের কার্ডের বিষয়ে তিনি কোন সদুত্তর দিতে পারেননি। ইউএনও সোহাগ হাওলাদার জানান, অভিযোগ তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেয়া হবে। চাল ও ত্রান নিয়ে দুর্নীতি হলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।