শোয়েব আখতারের বিরুদ্ধে মানহানি ও ফৌজদারি মামলা

শোয়েব আখতারের বিরুদ্ধে মানহানি ও ফৌজদারি মামলা
  • 4
    Shares

বিপদকে স্বাগত জানানো শোয়েব আখতারের জন্য নতুন কোনো ঘটনা নয়। পুরনো সেই অভ্যাসটা খেলোয়াড়ি জীবন থেকে অবসর নেওয়ার পরও রয়ে গেছে পাকিস্তানি এই ফাস্ট বোলারের। আর তারই জেরে এবার মামলার চক্করেও পড়তে হচ্ছে তাকে। ইউটিউবে বেফাঁস মন্তব্য করার দায়ে শোয়েবের বিরুদ্ধে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) আইনজীবি তাফাজ্জুল রিজভী মানহানি এবং ফৌজদারি মামলা ঠুকে দিয়েছেন। সাইবার ক্রাইমের ধারায় এখন পাকিস্তানের আদালতে শোয়েবের বিরুদ্ধে এই মামলা চলবে।

স্পট ফিক্সিং বিতর্কে জড়িয়ে পড়ার কারণে পিসিবি সম্প্রতি ওমর আকমলকে তিন বছরের জন্য ক্রিকেটে নিষিদ্ধ করেছে। আকমলের এই নিষেধাজ্ঞার বিপক্ষে শোয়েব আখতার ইউটিউব চ্যানেলে খুবই আক্রমণাত্মক ভাষায় পিসিবি এবং এর আইনজীবি তাফাজ্জুল রিজভীর সমালোচনা করেন। শোয়েবের সেই সমালোচনার ভাষা এতই তির্যক ছিল যে পাকিস্তানের বার কাউন্সিল পর্যন্ত আইনের বৈধতা প্রসঙ্গে কোনো অযাচিত মন্তব্য করতে তাকে সতর্ক করে দেয়।

পিসিবি এক বিবৃতিতে জানায়- ‘পিসিবি-র আইন বিভাগ এবং আইন উপদেষ্টার বিরুদ্ধে শোয়েব আখতার প্রকাশ্যে যে ভাষা ও শব্দ ব্যবহার করেছেন সেটা খুবই হতাশাজনক। তার এসব শব্দচয়ন মোটেও যথাযথ নয়। অসম্মান ও অশ্রদ্ধায় ভরা শোয়েবের এই মন্তব্য সভ্য সমাজে মেনে নেওয়া যায় না। আর তাই স্বীয় উদ্যোগে পিসিবি-র আইনজীবি তাফাজ্জুল রিজভী এই মানহানি ও ফৌজদারি মামলা করেছেন। নিজেদের অধিকার রক্ষায় পিসিবি সবসময় সচেষ্ট।’

ওমর আকমলের শাস্তির সমালোচনার সঙ্গে সঙ্গে শোয়েব আখতার পিসিবি-র আইনজীবি তাফাজ্জুল রিজভীর যোগ্যতা নিয়েও প্রশ্ন তুলেন। শোয়েব বলেন- ‘তাফাজ্জুল রিজভীর কাজই হলো বোর্ড এবং খেলোয়াড়দের মধ্যকার বিষয়গুলোকে জটিল করে তোলা।’

পিসিবি’র এই মামলায় শোয়েব নিজেকে নির্দোষ প্রমাণ করতে না পারলে মোটা অঙ্কের অর্থদণ্ড হতে পারে।