সুনামগঞ্জে করোনা মুক্ত হয়ে বাড়ি ফিরলেন দুইজন

সুনামগঞ্জে করোনা মুক্ত হয়ে বাড়ি ফিরলেন দুইজন

সুনামগঞ্জে করোনাভাইরাসের আতঙ্কের মধ্যে সুসংবাদ দিলো জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। জেলায় মোট ১৫ জন করোনা আক্রান্ত রোগীর মধ্যে দুইজন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। তাদের নমুনা পুনরায় পরীক্ষা করে ফলাফল নেগেটিভ আসায় হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে। তবে এখনও জেলায় মোট করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১৪ জন। কারণ ঢাকা থেকে করোনা আক্রান্ত হয়ে পালিয়ে আসা যুবকের গণনা হবে ঢাকা জেলার মধ্যে।

জানা যায়, গত ১২ এপ্রিল সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজার উপজেলায় প্রথম করোনাভাইরাসে শনাক্ত হওয়া এক নারী ও ঢাকায় আক্রান্ত হয়ে সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুরে পালিয়ে আসা যুবক করোনাভাইরাস থেকে মুক্ত হয়েছেন। এতে করে সুনামগঞ্জের হিসেবে বর্তমান করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১৪ জন। অন্যদিকে হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র পাওয়া ওই দুইজনের মুখে ছিল বিজয়ের আনন্দ। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ দিয়ে তারা তাদের বাড়িতে রওয়না হন।

এ সময় বিশ্বম্ভরপুর উপজেলায় পালিয়ে আসা ওই যুবক বলেন, মনের মধ্যে একটি ভীতি কাজ করায় আমি পালিয়ে আসি। কিন্তু ডাক্তাররা আমাকে ঠিকই খুঁজে বের করেন। আমি এখন সুস্থ। তারা আমাকে যেভাবে সেবা দিয়েছেন আমি তাদের কাছে কৃতজ্ঞ। আমার মতো ভুল কেউ করবেন না। করোনায় আক্রান্ত হলে অবশ্যই হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে হবে।

তিনি আরও বলেন, আমি ভেবেছিলাম আমার জীবন শেষ। কিন্তু আজকে আমার ফলাফল নেগেটিভ আসায় মনে হচ্ছে আমি নতুন জীবন পেয়েছি। সবাইকে একটি কথাই বলবো করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলে ভয় পাবেন না, নিয়ম করে চললে অবশ্যই সুস্থ হবেন।

অন্যদিকে সুনামগঞ্জে প্রথম করোনাভাইরাসে শনাক্ত হওয়া ৩৩ বছর বয়সী নারীর সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। তিনি তার পরিবারের লোকজনের সঙ্গ বাড়ি চলে গেছেন।

এ ব্যাপারে সুনামগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. শামস উদ্দিন বলেন, সুনামগঞ্জের জন্য আজকে আমাদের একটি খুশির খবর। করোনা আক্রান্ত দুইজন রোগী সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। তারপরও আমরা তাদের পর্যবেক্ষণ করবো। করোনাভাইরাস নিয়ে ভয় না পেয়ে সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে। আমরা আশা করি বাকি যারা আক্রান্ত রয়েছেন তারাও সুস্থ হয়ে বাড়িতে ফিরবেন।

উল্লেখ্য, সুনামগঞ্জে এখনও ১৪ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী রয়েছেন। যার মধ্যে সুনামগঞ্জ সদর উপজেলায় দুইজন, দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলায় দুইজন, শাল্লা উপজেলায় তিনজন, জামালগঞ্জ উপজেলায় দুইজন, জগন্নাথপুর উপজেলায় দুইজন, ছাতক উপজেলায় দুইজন এবং দিরাই উপজেলায় একজন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে।

মোসাইদ রাহাত/আরএআর/জেআইএম